Monday , January 28 2019
ব্রেকিং নিউজ :

Home / সারাদেশ / রাজশাহীর মনিবাজারে বাহারি রঙিন ফুলের মেলা

রাজশাহীর মনিবাজারে বাহারি রঙিন ফুলের মেলা

খােলাবাজার২৪,সোমবার, ২৮ জানুয়ারি ২০১৯ঃ বসন্ত এখনো আসেনি। কিন্তু ফুলের কমতি নেই মনিবাজারে। শীতের দেশি-বিদেশি নানা প্রজাতির ফুলের মেলা বসেছে এখানে। দর্শনার্থীদের নানা প্রজাতির ফুলের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতেই রাজশাহীতে এই আয়োজন। ওয়ান ব্যাংকের সহায়তায় ক্রীড়া সংগঠন ‘বৈকালী সংঘ’ প্রতিবছরের মতো এবারও পাঁচ দিনের মেলার আয়োজন করেছে।

সোমবার সকালে আনুষ্ঠানিকভাবে মেলার উদ্বোধন করেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ বেতারের ভারপ্রাপ্ত আঞ্চলিক পরিচালক হাসান আখতার, ওয়ান ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট আব্দুল মান্নান, বৈকালী সংঘের সভাপতি এওয়াইএম মনিরুজ্জামান এবং সাধারণ সম্পাদক রইস উদ্দিন আহমেদ বাবু।

আয়োজকদের দাবি, ফুল বিক্রি করা পুস্পমেলার উদ্দেশ্য নয়। উদ্দেশ্য ফুল সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মাঝে আগ্রহ আরো জাগিয়ে তোলা এবং ফুল চেনা। শহুরে জীবনে বন্দি মানুষের কিছু সময়ের জন্য আনন্দ দেওয়া। ১৯৮৫ সাল থেকে এ মেলার আয়োজন করা হচ্ছে।

মেলার স্টলে স্টলে সাজানো রয়েছে নানা জাতের ফুলগাছ ও ফুল। দর্শনার্থীরা কেউ হাত দিয়ে ছুয়ে দেখছেন, আবার কেউ নিজের মুখ ফুলের সৌন্দর্যে রাঙাতে ফুলের সঙ্গে ক্যামেরার ফ্রেমে বন্দি করে রাখছেন।

মেলার উদ্বোধনী দিনে কেউ এসেছেন বন্ধু-বান্ধবীর সঙ্গে, আবার কেউ স্বপরিবারে। কেউ একা। শিশু-কিশোর থেকে শুরু করে নানা বয়সী মানুষের পদচারণায় মেলার প্রথম দিন জমে উঠেছে। মেলায় সবচেয়ে বেশি ভিড় ছিল তরুণ-তরুণীর।

পুষ্পমেলায় অংশ নেওয়া বৃক্ষবাজার অ্যান্ড নার্সারি স্টলের পুরোটা জুড়ে আছে বিদেশি নানা ফুলের সমাহার। ফুল আর ফুলের গাছে সাজানো স্টলের সামনে দর্শনার্থীদের ভিড়। স্টল মালিক শফিউজ্জামান বলেন, তার স্টলে শুধু গোলাপ আছে ১৫ প্রজাতির। সর্বনিম্ন ৩০ টাকা থেকে ৩০০০ টাকা দামের ফুলের গাছ রয়েছে তার স্টলে।

‘মা নার্সারি’ স্টলে গিয়ে দেখা যায়, এই স্টলে হরেক রকমের বিদেশি ফুল ও ফুলগাছ রয়েছে। তবে চোখ ধাঁধানো দেশি ফুলের নানা জাতের গাছ বেশি। স্টল মালিক শামীম জানান, তার স্টলে স্টার, গ্যাজানিয়া, গাদা, গোলাপ, ডালিয়া, জারবেরা, ক্রিজিয়াম, সালেসিয়া, ইফোরবিয়াসহ নানা প্রজাতির দেশি-বিদেশি ফুল রয়েছে।

পুস্পমেলায় কাজিহাটা এলাকার গৃহবধূ সুবর্ণা পারভীন বলেন, বাহারি ধরনের এত ফুল সচারচর দেখা যায় না। অনেক ফুলপ্রেমি আছেন, যারা নার্সারিতে গিয়ে ভালো ফুল গাছ পান না। এই মেলায় এসে যেমন চারা পাবেন,  তেমনি ফুলের চাষ এবং পরিচর্যা সম্পর্কে অনেক কিছু জানা যাবে। তিনি প্রতিবছর মেলায় আসেন এবং টবসহ ফুলের গাছ কিনে নিয়ে যান।

বৈকালী সংঘের সভাপতি রইস উদ্দিন বাবু বলেন, আধুনিক যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশীয় ফুলের সঙ্গে বিদেশি জাতের নানা ফুল এখন দেশের মানুষের বাগান ও ঘরবাড়ির সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে শোভা পায়। এগুলো ফুলপ্রেমি মানুষের মনে বাড়তি আনন্দ দিয়ে থাকে। নামি-দামি অনেক ফুল সাধারণ মানুষের চোখে খুব একটা পড়ে না। তারা এ ফুলগুলোর সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারেন না। সেদিক বিবেচনা করে প্রতিবছর তাদের এ আয়োজন।

এবার মেলা চলবে আগামী ১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। রয়েছে ৩০টি স্টল। প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেলা চলবে। সবার কাছে মেলা প্রাণবন্ত করতে মেলা প্রাঙ্গণে শিশুদের আবৃত্তি, চিত্রাঙ্কন, নৃত্য, দেশের গান ও ছড়াগান প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। মেলার সমাপণী অনুষ্ঠানে বিজয়ী শিশুদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

About kholabazar 24