Monday , May 27 2019
ব্রেকিং নিউজ :

Home / অন্যরকম / আসামীকে ছাড়াতে পুলিশের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, ৩ পুলিশ আহত

আসামীকে ছাড়াতে পুলিশের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, ৩ পুলিশ আহত

আসামীকে ছাড়াতে পুলিশের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, ৩ পুলিশ আহত

 খােলাবাজার ২৪,বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০১৯ঃ আসামী ছিনিয়ে নিতে পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে।

বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার গোপালদী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে এই হামলার ঘটনা ঘটে। পুলিশের ওপর এই হামলা চালায় গোপালদী পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুজয় সাহা ও তার সহযোগীরা। হামলায় ৩ পুলিশ আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আটক করা হয়েছে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ দুইজনকে।

আড়াইহাজার থানার ওসি আক্তার হোসেন জানান, বুধবার সকাল ১১টায় মাদক সেবন ও ইভটিজিংয়ের অপরাধে উপজলোর রামচন্দ্রদী গ্রামের জামাল উদ্দিনের ছেলে দিদার ইসলামকে গোপালদী বাজার থেকে আটক করে পুলিশ। তার আটকের খবর জানতে পেরে গোপালদী পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুজয় সাহা আটককৃত দিদারকে ছাড়িয়ে আনতে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে যান।

এই সময় পুলিশ আসামী দিদারকে ছাড়তে অস্বীকৃতি জানালে ছাত্রলীগ নেতা সুজয় সাহা পুলিশকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এ সময় পুলিশের এটিএসআই মামুন ছাত্রলীগ নেতা সুজয়ের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজের প্রতিবাদ করলে সুজয় ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে মারধর শুরু করে।

একপর্যায়ে সুজয় মোবাইল ফোনে ছাত্রলীগের আরো নেতাকর্মীকে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে ডেকে পুলিশের হামলা চালাতে থাকে।

এদিকে খবর পেয়ে আড়াইহাজার থানার ওসি আক্তার হোসেন অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স নিয়ে তদন্ত কেন্দ্রে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন এবং অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা সুজয় ও দিদারকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। এদিকে খবর পেয়ে জেলা পুলিশের (সি-সার্কেল) আশ্রাফউদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

ছাত্রলীগের হামলায় আহত হয়েছেন পুলিশের এটিএসআই মামুন, কনস্টবেল আবুল বাশার ও ইমরান। পরে ঘটনাস্থল থেকে তাদেরকে উদ্ধার করে আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়।

ওসি আক্তার হোসেন আরো জানান, পুলিশকে মারধরের ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতাসহ অন্যান্য আসামীদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এ বিষয়ে গোপালদী পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল আহমেদ আপন জানান, মাদক সেবন ও ইভটিজিংয়ের অপরাধে আটককৃত দিদার এইচএসসি পরীক্ষার্থী। ‘কোনো কারণ ছাড়াই’ তাকে গ্রেফতার করা হয়। সে মাদক ও ইভটিজিংয়ের সাথে ‘জড়িত নয়’। তাকে ছাড়িয়ে আনতে তদন্ত কেন্দ্রে গেলে পুলিশ ছাত্রলীগ নেতাদের সাথে খারাপ আচরণ করে।

গোপালদী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ নাসির উদ্দিন জানান, বেশ কয়েক দিন ধরে গোপালদী কলেজ রোড এলাকায় বখাটে ছেলেদের উৎপাত বেড়ে গেছে। তাই সেখানে পুলিশ ডিউটি দেয়া হয়েছে। ডিউটিরত অবস্থায় পুলিশের সামনে আটককৃত ছাত্রলীগ কর্মী দিদার একটি মেয়েকে ইভটিজিং করলে তাকে আটক করে তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়। এরই মধ্যে ছাত্রলীগ নেতা সুজয় সাহা তদন্ত কেন্দ্রে এসে পুলিশের ওপর হামলা চালায়।

ডিউটিরত অবস্থায় পুলিশের সামনে আটককৃত ছাত্রলীগ কর্মী দিদার একটি মেয়েকে ইভটিজিং করলে তাকে আটক করে তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়। এরই মধ্যে ছাত্রলীগ নেতা সুজয় সাহা তদন্ত কেন্দ্রে এসে পুলিশের ওপর হামলা চালায়।

Print Friendly, PDF & Email

About kholabazar 24