Wednesday , August 7 2019
ব্রেকিং নিউজ :

Home / তথ্য প্রযুক্তি / বৃহস্পতিবার থেকে বন্ধ হচ্ছে নকল ও অবৈধ মোবাইল হ্যান্ডসেট!

বৃহস্পতিবার থেকে বন্ধ হচ্ছে নকল ও অবৈধ মোবাইল হ্যান্ডসেট!

খােলাবাজার ২৪,বুধবার,০৭ আগস্ট ,২০১৯ঃ বৃহস্পতিবার থেকে দেশে অবৈধ মোবাইল হ্যান্ডসেট ব্যবহার বন্ধ হচ্ছে। অবৈধ হ্যান্ডসেট ব্যবহার বন্ধ করতে বৈধভাবে আমদানি করা সেটগুলোর আইএমইআই নাম্বারের তথ্যভান্ডার স্থাপন করা হয়েছে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) সূত্রে জানা যায়, নকল ও অবৈধ আইএমইআই এর মোবাইল ফোন নেটওয়ার্কে সংযুক্ত হলে পরবর্তীতে ন্যাশনাল ইক্যুপমেন্ট আইডেন্টিটি রেজিস্ট্রারের (এনইআইআর) মাধ্যমে তার নেটওয়ার্ক বিচ্ছিন্ন করা হবে। সে কারণে আইএমইআই যাচাই ও রশিদসহ মোবাইল ফোন কিনতে পরামর্শ দিয়েছে বিটিআরসি।

এ জন্যে মোবাইল ইম্পোটার্স অ্যাসোসিয়েশন বিটিআরসিতে আইএমইআই-সংক্রান্ত তথ্যভান্ডার স্থাপন করা হয়। সেখানে বৈধভাবে আমদানি করা মোবাইল ফোনের আইএমইআই সংক্রান্ত তথ্য রাখা হচ্ছে।

মোবাইল ফোনটি অবৈধ বা নকল কিনা তা দেখতে ম্যাসেজ অপশনে গিয়ে ইংরেজি বড় হাতের ’কেওয়াই ডি’ টাইপ করে স্পেস দিয়ে ১৫ ডিজিটের আইএমইআই নম্বর দিয়ে তা ১৬০০২ নম্বরে পাঠাতে হবে। এরপর ফিরতি এসএমএসে আইএমইআই নম্বরটি বিটিআরসির ডেটাবেজে সংরক্ষিত আছে কিনা তা জানা যাবে। নতুন মোবাইল কেনার ক্ষেত্রে প্যাকেটের গায়ে লেখা ১৫ ডিজিটের আইএমইআই নম্বর (*#/,. ইত্যাদি বিশেষ চিহ্ন বাদে শুধুমাত্র ১৫টি নম্বর) এবং ব্যবহৃত মোবাইলের ক্ষেত্রে *#০৬# চেপে প্রাপ্ত ১৫ ডিজিটের আইএমইআই নম্বর পাওয়া যাবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, চোরাই পথে আনা হ্যান্ডসেটগুলোতে বিভিন্ন রকম নকল আইএমইআই ব্যবহার করা হয়। দেশে আইএমইআই ডেটাবেস চালু হলে চোরাই পথে আসা হ্যান্ডসেটগুলোতে আর একের অধিক আইএমইআই ব্যবহার করা যাবে না। আইএমইআই ডেটাবেসের অভাব এবং পরীক্ষার ব্যবস্থা না থাকায়, গ্রে (চোরাই) মার্কেটে অবৈধপথে আসা ফোন বিক্রি বেড়েছে। তবে বিগত বছরগুলোর তুলনায় বর্তমানে অবৈধপথে আসা হ্যান্ডসেট কিছুটা কমেছে। নকল ও অবৈধ হ্যান্ডসেটের কারণে সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এটি পুরোপুরি বন্ধ করতে পারলে সরকারের রাজস্ব আয় আরও বাড়বে এবং গ্রাহকদের নিরাপত্তা শতভাগ নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।

Print Friendly, PDF & Email

About kholabazar 24