Thursday , June 20 2019
ব্রেকিং নিউজ :

Home / Uncategorized / এবারও ধাপে ধাপে উপজেলা নির্বাচন

এবারও ধাপে ধাপে উপজেলা নির্বাচন

খােলাবাজার২৪,সোমবার, ০৭ জানুয়ারি ২০১৯ঃ এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা, পবিত্র রমজান এবং আবহাওয়া পরিস্থিতি বিবেচনায় ছয় বা সাত ধাপে দেশের প্রায় ৪৯০টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ হতে পারে। ইসি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। 

আগামী মার্চে প্রথম ধাপে ভোটগ্রহণের পরিকল্পনা রয়েছে ইসির। এ ক্ষেত্রে জানুয়ারির শেষ দিকে অথবা ফেব্রুয়ারিতে তফসিল ঘোষণা করা হতে পারে। এ নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারের পরিকল্পনা রয়েছে। 

জানা যায়, এরই মধ্যে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন আয়োজনে প্রস্তুতিমূলক কার্যক্রম শুরু করেছে ইসি। জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরই এ নির্বাচন অনুষ্ঠানে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। প্রস্তুতির অংশ হিসেবে এরই মধ্যে দেশের সব উপজেলা পরিষদের সর্বশেষ তথ্য ইসিকে জানাতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেয়া হয়েছে। 

এতে উপজেলার নাম উল্লেখ করে সর্বশেষ নির্বাচনের তারিখ, ওই উপজেলার চেয়ারম্যান ও ভাইস-চেয়ারম্যানদের শপথগ্রহণ এবং প্রথম বৈঠকের তথ্য জানাতে বলা হয়েছে। প্রায় একই ধরনের তথ্য দিতে দশ আঞ্চলিক কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দিয়েছে ইসি। 

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের বিষয়ে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে এসএসসি ও এপ্রিলে এইচএসসি পরীক্ষা থাকায় মার্চ মাস ভোটগ্রহণের জন্য সুবিধাজনক সময়। তবে এখনও বিষয়টি নিয়ে ইসির সভায় আলোচনা হয়নি। 

তিনি বলেন, কমিশন আমাদের যে নির্দেশনা দেবেন, সে অনুযায়ী পদক্ষেপ নেয়া হবে। 

ইসির কর্মকর্তারা জানান, উপজেলা পরিষদ আইন, ১৯৯৮ এর ১৭(১)(গ) ধারা অনুযায়িী, পরিষদের মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখের আগের ১৮০ দিনের মধ্যে ভোটগ্রহণের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। পরিষদের প্রথম বৈঠক (সভা) থেকে মেয়াদ শুরু হয়। সর্বশেষ ২০১৪ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারিতে ৯৭টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ওই বছরের জুন-জুলাইয়ে সবমিলিয়ে সাত ধাপে বাকি উপজেলা পরিষদে নির্বাচন হয়েছিল। ওই বছরের বিভিন্ন সময়ে উপজেলা পরিষদগুলোতে প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ কারণে ইতোমধ্যে অর্ধেকের বেশি উপজেলা পরিষদ ভোটগ্রহণের উপযোগী হয়েছে।

কর্মকর্তারা জানান, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের তথ্য পাওয়ার পরই পরিষ্কার হবে কোন উপজেলাগুলো নির্বাচনের উপযোগী হয়েছে। কতটি একই সঙ্গে নির্বাচন করা যাবে। 

ইসি সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনের প্রস্তুতির প্রাথমিক কাজগুলো এগিয়ে নিচ্ছে সংশ্লিষ্ট শাখাগুলো। জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগেই ভোটার তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে। ওই তালিকায় পরবর্তীতে সংযোজিতদের অন্তর্ভুক্ত করে উপজেলা নির্বাচনের নতুন ভোটার তালিকা তৈরি করা হবে। এ ছাড়া সংসদের ভোটের সঙ্গে উপজেলা পরিষদের নির্বাচনী সামগ্রী কেনাকাটা করেছে ইসি। ব্যালট পেপারের কাগজ, স্ট্যাম্প প্যাড, অফিসিয়াল সিল, মার্কিং সিল, ব্রাশ সিল, লাল গালা, অমোচনীয় কালি ইসির ভান্ডারে মজুদ রয়েছে। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের বিভিন্ন ফরম, প্যাকেট ও ব্যালট ছাপানোর কাগজও কেনা রয়েছে। এখন দেশের সব উপজেলার সর্বশেষ নির্বাচনের তারিখ ও প্রথম বৈঠকের তথ্য পাওয়ার পরই তা কমিশনের নির্দেশনার জন্য তোলা হবে। 

সূত্রে আরো জানা গেছে, এখন ভোটের তারিখ নির্ধারণ নিয়ে ইসি সচিবালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মধ্যে আলাপ-আলোচনা চলছে। এ ক্ষেত্রে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা গুরুত্ব পাচ্ছে। পরীক্ষায় কোনো ধরনের সমস্যা যাতে না হয়, সেদিকে বিবেচনা রেখে ভোটের তারিখ নির্ধারণের চিন্তা করা হচ্ছে। 

ইসির একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, প্রতিটি ধাপে কতটি উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে তার ওপর নির্ভর করে বাজেট নির্ধারণ করা হবে। 

১৯৮৫ সালে বাংলাদেশে প্রথমবার, ১৯৯০ সালে দ্বিতীয়বার ও ২০০৯ সালে তৃতীয়বার মতো উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই বছর একই দিনে ৪৭৫টি উপজেলায় এই নির্বাচন হয়। 

Print Friendly, PDF & Email

About kholabazar 24