Wednesday , March 3 2021
ব্রেকিং নিউজ :

Home / রাজনীতি / নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংসস্তূপে পরিণত করেছে ইসি : রুহুল কবির রিজভী

নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংসস্তূপে পরিণত করেছে ইসি : রুহুল কবির রিজভী

খােলাবাজার২৪,শুক্রবারর,১২ ফেব্রুয়ারি ২০২১ঃ নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে ‘অসদাচরণের’ অভিযোগ এনে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘দুর্নীতি ও চাকরি রক্ষা করতে গিয়ে সরকারের ইচ্ছেপূরণে ইসি দেশের নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংসস্তূপে পরিণত করেছে।’

বিএনপির নেতা আরও দাবি করেন, ‘অনিয়ম, আর্থিক কেলেঙ্কারি এবং নিয়োগ বাণিজ্যে জড়িত এই নির্বাচন কমিশন। কিন্তু এর পরও তাদের কেউ টলাতে পারে না। কারণ সরকারকে খুশি করাই তাদের একমাত্র লক্ষ্য। দেশব্যাপী ভোটসন্ত্রাসের বৈধতা দান করতে গিয়ে কমিশন বিভিন্নভাবে আইন ও বিধি-বিধানের লঙ্ঘন করেছে গুরুতর অসদাচরণের মাধ্যমে।’

আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এসব কথা বলেন।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব বলেন, “ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) বিষয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণের মাধ্যমে বিশেষজ্ঞরা যা বলেছিলেন তা হলো- এই মেশিনে দূর থেকে হ্যাক করা যায়। ভোটের ফলাফল ম্যানিপুলেট করা যায়।’

“২০১৮ সালে বিএনপিসহ অধিকাংশ রাজনৈতিক দল নির্বাচন কমিশনে নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার না করার জন্য অনুরোধ করলে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেছিলেন, ‘রাজনৈতিক দলগুলো না চাইলে ইভিএম ব্যবহার করা হবে না।’ কিন্তু প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) সেই কথা রাখেননি। তিনি কথা রেখেছেন সরকারের। ইভিএমে ভোট ম্যানিপুলেট করা হয়েছে দেদারসে। দিনের ভোট রাতে করেছে।”

বিএনপির এই নেতা অভিযোগ করে বলেন, ‘সরকারি দলের ভোটসন্ত্রাস, হামলা, প্রচার মাইক ভাঙচুর, বিএনপি নেতাকর্মীদের জখম ও রক্তাক্ত করা, ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে না দেওয়া, যেখানে ভোট হচ্ছে, সেই এলাকার নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা, হয়রানি এবং পাইকারিভাবে গ্রেপ্তারের বিষয়ে অভিযোগ করলে নির্বাচনি কার্যালয়ের কর্মকর্তারা তা আমলে নেন না। বরং উপহাস করেন, তামাশা করেন।’ তিনি আরও বলেন, ‘এই নির্বাচন কমিশন যে অপরাধ করেছে, তা অবশ্যই অভিশংসনযোগ্য অপরাধ, দেশের ৪২ জন বিশিষ্ট নাগরিকের এই অভিমতের সঙ্গে বিএনপি সম্পূর্ণরূপে একমত।’

সাম্প্রতিক পৌরসভা নির্বাচনের উদাহরণ টেনে রিজভী অভিযোগ করেন, ‘ঠাকুরগাঁও পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের ক্যাডাররা বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের মেয়র প্রার্থীর নির্বাচনি প্রচারে ব্যাপক বাধাদানসহ পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা, বিএনপি নেতাকর্মীদের মারপিট ও প্রকাশ্যে মাইকের মাধ্যমে ভোটকেন্দ্রে না আসতে হুমকি-ধমকি অব্যাহত রেখেছে। প্রশাসনকে এ বিষয়ে অবহিত করা হলেও কোনও প্রতিকার পাওয়া দূরের কথা, উল্টো বিএনপি নেতাকর্মীসহ ধানের শীষ প্রতীকের সমর্থক ও ভোটারদের বিরুদ্ধে পরিকল্পিতভাবে বানোয়াট ঘটনা সাজিয়ে মিথ্যা মামলা দায়ের ও গ্রেপ্তার অভিযান চালিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে।’

রিজভী আরো বলেন, ‘নির্বাচনে ধানের শীষের নিশ্চিত বিজয়কে ঠেকাতেই এ ধরনের অপকর্মে লিপ্ত রয়েছে তারা। এ নিয়ে ধানের শীষের মেয়র প্রার্থী, বিএনপি নেতাকর্মী, সমর্থক ও ভোটাররা নির্বাচনি সুষ্ঠু পরিবেশ নিয়ে গভীর আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। নৌকা প্রতীকের পক্ষে প্রশাসনের নির্লজ্জ পক্ষপাতিত্বের ঘটনায় আমি গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছি এবং অবিলম্বে ঠাকুরগাঁও পৌর নির্বাচনকে ভয়ভীতিমুক্ত করতে যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান জানাচ্ছি।’

বিএনপির জ্যেষ্ঠ এই নেতা আরও বলেন, ‘ফুলপুর পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গত ১০ ফেব্রুয়ারি বিএনপির মনোনীত প্রার্থী আমিনুল হকের সমর্থনে নির্বাচনী প্রচার, পথসভা, পথসভার নির্ধারিত স্থান, বিএনপির নির্বাচনি ক্যাম্প এবং সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল বাশার আকন্দর বাসভবনে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা ব্যাপক হামলা ও ভাঙচুর চালিয়েছে। নির্বাচনের আগ মুহূর্তে সন্ত্রাসী হামলা করে নির্বাচনের পরিবেশ বিনষ্ট এবং বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের মেয়র পদপ্রার্থী ও নেতাকর্মী-সমর্থকদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে আওয়ামী ক্যাডাররা।

Print Friendly, PDF & Email

About kholabazar 24