Tue. Jun 22nd, 2021

খােলাবাজার২৪, শুক্রবার, ১১ জুন, ২০২১ঃ রাজশাহী থেকে গোলাম মোস্তফা মামুন: রাজশাহীতে নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এবং উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা দিন দিন বেড়ে চলেছে। এমন পরিস্থিতিতে মহানগরীতে আজ শুক্রবার বিকেল থেকে এক সপ্তাহের সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন। রাজশাহী সার্কিট হাউসে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে লকডাউনের সিদ্ধান্তের কথা জানান বিভাগীয় কমিশনার ড. হুমায়ুন কবীর।

এরই মধ্যে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ও করোনা ওয়ার্ডে আজ শুক্রবার সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে সাতজন করোনা পজিটিভ ছিলেন। অপর আটজন নমুনা পরীক্ষার আগেই মারা গেছেন। রামেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস এ তথ্য জানিয়েছেন।

এদিকে, মারা যাওয়া ১৫ জনের মধ্যে আটজনই রাজশাহীর বাসিন্দা। এ ছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জের ছয়জন ও নাটোরের একজন রয়েছেন। এর মধ্যে ছয়জন আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। এ ছাড়া ২২ নম্বর ওয়ার্ডে তিনজন, ১ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডে দুজন করে এবং ১৬ ও ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে একজন করে মারা গেছেন।

মৃতদের মধ্যে ১১ জন পুরুষ ও চারজন নারী। এর মধ্যে ৬১ বছরের ঊর্ধ্বে ছয়জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে চারজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে তিনজন ও ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে দুজন রয়েছেন।

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় রামেক হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে নতুন করে ৪৩ জন রোগী ভর্তি হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ২২ জনই রাজশাহীর। অন্যদের মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১১ জন, নওগাঁর সাতজন এবং নাটোর, পাবনা ও মেহেরপুরের একজন করে রয়েছেন।

জানা গেছে, রামেক হাসপাতালে করোনা রোগীদের চাপ ক্রমাগত বাড়তে থাকায় বর্তমানে নয়টি ওয়ার্ডকে করোনা ওয়ার্ডে রূপান্তর করা হয়েছে। এসব ওয়ার্ডে ২৭১টি শয্যা থাকলেও আজ শুক্রবার সকালে সেখানে রোগী ভর্তি ছিল ২৯৭ জন। বাড়তি রোগীদের ওয়ার্ডগুলোর বারান্দা ও মেঝেতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তাদের প্রায় সবারই অক্সিজেন প্রয়োজন হচ্ছে।

রামেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস জানান, আজ শুক্রবার সকাল পর্যন্ত হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডগুলোতে যে ২৯৭ জন রোগী ভর্তি রয়েছে, তাদের মধ্যে ১৪২ জনই রাজশাহীর। এ ছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১১০ জন, নওগাঁর ২৪ জন, নাটোরের ১৫ জন এবং পাবনা ও কুষ্টিয়ার তিনজন করে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

এদিকে, গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে রামেক হাসপাতালের দুটি আরটি পিসিআর ল্যাবে ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৭৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৩৮ দশমিক ৮৩ শতাংশ।

রাজশাহীতে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়তে থাকায় আজ শুক্রবার বিকেল ৫টা থেকে আগামী ১৭ জুন মধ্যরাত পর্যন্ত নগরীতে এক সপ্তাহের সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন। লকডাউন চলাকালে মহানগরীতে দোকানপাট, রিকশাসহ সব ধরনের যানবাহন ও গণপরিবহণ চলাচল বন্ধ থাকবে। এ ছাড়া আজ থেকে আগামী ১৭ জুন পর্যন্ত রাজশাহী থেকে বিভিন্ন গন্তব্যে চলাচলকারী যাত্রীবাহী সব ট্রেন বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। রেলওয়ের জনসংযোগ বিভাগের পরিচালক মোহাম্মদ সফিকুর রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার রাজশাহী সার্কিট হাউজে বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে লকডাউনের সিদ্ধান্তের কথা জানান বিভাগীয় কমিশনার ড. হুমায়ুন কবীর। বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে অংশ নেন রাজশাহী রেঞ্জ পুলিশের ডিআইজি আব্দুল বাতেন, রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক, জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ শরিফুল হক প্রমুখ।

জেলার পরিবর্তে শুধুমাত্র নগরীতে লকডাউন কেন, এমন প্রশ্নের জবাবে বিভাগীয় কমিশনার জানান, নগরীতে করোনা সংক্রমণের হার ঊর্ধ্বমুখী। এ কারণে নগরীতে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে নগরবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।