বৃহঃ. অক্টো ২১, ২০২১

খোলাবাজার২৪,মঙ্গলবার ০৫ অক্টোবর ২০২১:সোমবার (৪ অক্টোবর) সন্ধ্যা থেকে হঠাৎই বন্ধ হয়ে যায় ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপ। প্রায় ছয় ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে বিশ্বব্যাপী থমকে ছিল জনপ্রিয় এই তিন সামাজিক মাধ্যম। যাতে প্রভাবিত হন বিশ্বব্যাপী ১.০৬ কোটি ব্যবহারকারী।

শুধু তা-ই নয়, এই সময়ে ৪.৯ শতাংশ হ্রাস পায় ফেসবুকের শেয়ার দর। যা গত বছর নভেম্বরের পর তাদের সবচেয়ে বড় দৈনিক পতন। কোম্পানিটির নিজস্ব ইমেল সিস্টেমসহ ফেসবুকের কিছু অভ্যন্তরীণ অ্যাপ্লিকেশনও প্রভাবিত হয়েছিল এই সময়ে।

বিজ্ঞাপন পরিমাপক সংস্থা স্ট্যান্ডার্ড মিডিয়া ইনডেক্স-এর দেয়া তথ্যানুযায়ী, বিঘ্ন চলাকালীন প্রতি ঘণ্টায় প্রায় ৫ লাখ ৪৫ হাজার ৫০০ ডলার অ্যাড রেভেনিউ হারিয়েছে ফেসবুক।

ফেসবুক শুরুতে ঠিক স্পষ্ট করে এই বিঘ্নতার কারণ সম্পর্কে কিছু জানায়নি। তারা কেবল জানায়, ‘কিছু ব্যবহারকারীর অ্যাক্সেস করতে সমস্যা হচ্ছে।’ সেই সঙ্গে আরও বলা হয়, অ্যাক্সেস পুনরুদ্ধারে কাজ চলছে। তবে পরে এ বিষয়ে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে সংস্থাটি।

ফেসবুকের ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘কনফিগারেশন বদলের ত্রুটি’ (faulty configuration change) এই অবস্থার জন্য দায়ী। নিজেদের এক ব্লগ পোস্টে এমনটাই উল্লেখ করে সোশ্যাল মিডিয়া জায়ান্ট কোম্পানিটি। তবে এই কনফিগারেশন কাদের করা বা এটি পূর্বপরিকল্পিত কিনা- সে বিষয়ে কিছু জানায়নি ফেসবুক।

বিবৃতিতে ফেসবুক জানায়, ‘আমাদের ইঞ্জিনিয়ারিং টিম জানতে পেরেছে যে, রাউটারগুলোতে কনফিগারেশন পরিবর্তনে গলদের ফলে আমাদের ডেটা সেন্টারগুলোর মধ্যে নেটওয়ার্ক ট্র্যাফিকের সমন্বয়ে সমস্যা হচ্ছিল। এর ফলে কানেকশন ব্যাহত হয়। নেটওয়ার্ক ট্রাফিকের এই বিঘ্ন আমাদের ডেটা সেন্টারগুলোর কানেকশনের পথে একটি ক্যাসকেডিং প্রভাব ফেলে। আমাদের পরিষেবাগুলো এই কারণে বন্ধ হয়ে যায়।’

এদিকে, ফেসবুকের বেশ কয়েকজন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কর্মী এ বিষয়ে রয়টার্সকে জানান, সম্ভবত ইন্টারনেট ডোমেইনে অভ্যন্তরীণ রাউটিং গলদের কারণে এই বিভ্রাট ঘটেছে। তাঁরা বলেন, অভ্যন্তরীণ কমিউনিকেশন টুলস এবং অন্যান্য কিছু ক্ষেত্রে সমস্যা হয়েছিল।

একই মত দিয়েছেন সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞরাও। তাদের মতে, ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ এবং ইনস্টাগ্রামের এই বিঘ্ন-ঘটনা একটি অভ্যন্তরীণ ত্রুটি। হার্ভার্ডের বার্কম্যান ক্লেইন সেন্টার ফর ইন্টারনেট অ্যান্ড সোসাইটির পরিচালক জোনাথন জিট্রেন টুইট করে লিখেছেন, ‘ফেসবুক গাড়ির মধ্যে চাবি রেখেই দরজা বন্ধ করে ফেলেছে!’

সাইবার থ্রেট বিশেষজ্ঞ ট্রয় মুরুসক বলেন, ‘ফেসবুকের বিভ্রাট DNS-এর কারণেই হয়েছে। তবে এটি সমস্যার একটি লক্ষণ মাত্র।’

ইন্টারনেট ইনফ্রাস্ট্রাকচার সংস্থা ক্লাউডফ্লেয়ারের সিটিও জন গ্রাহাম-কামিং বলেন, ‘সম্ভবত ফেসবুক তাদের রাউটারগুলোর সঙ্গে কিছু করেছে। এই রাউটারগুলোই ফেসবুক নেটওয়ার্ককে বাকি ইন্টারনেটের সঙ্গে সংযুক্ত করে।