রবি. মে ১৯, ২০২৪
Logo Signature
Agrani Bank
Rupali Bank
Advertisements

খোলাবাজার অনলাইন ডেস্ক : সুনান বিন মাহাবুব, পটুয়াখালীঃ পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জের মাধবখালী ইউনিয়ন পরিষদের ৭নং ওয়ার্ডে সদস্য মোল্লা মারুফ হোসেনের বিরুদ্ধে একই ইউপির চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান লাভলুর সীল ও স্বাক্ষর জাল জালিয়াতির অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও রাষ্ট্রীয় নানান কর্মসূচীসহ জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচি পালন না করে শোক দিবস নিয়ে কটাক্ষ করার অভিযোগ উঠেছে ইউপি সদস্য মোল্লা মারুফ হোসেনসহ ৬ ইউপি সদস্যদের বিরুদ্ধে।
এদিকে ইউপি সদস্যদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ধামাচাপা দেয়ার জন্য চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বানোয়াট কুৎসা রটিয়েছে অভিযুক্ত ইউপি সদস্যরা। তাই শুক্রবার (২৫ আগস্ট) সকালে কাঠালতলী বাজারে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বানোয়াট অভিযোগ ও অপপ্রচারের বিরুদ্ধে ও অভিযুক্ত ইউপি সদস্যদের বিচার ও ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের দাবীতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছে স্থানীয় সাধারণ মানুষ। এছাড়াও একই ঘটনায় ও আনিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে শুক্রবার (২৫ আগস্ট) সকালে ইউনিয়ন পরিষদে সংবাদ সম্মেলন করে চেয়ারম্যান ও মাধবখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান লাভলু।
সংবাদ সম্মেলনে ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান লাভলু বলেন, “আমার পরিচয়পত্র নিয়ে স্বাক্ষর জাল করে দীর্ঘদিন প্রতারণা করে আসছে ইউপি সদস্যরা। এ বিষয়ে গত ১৫/২০ দিন আগে জানতে পারি। তারপরই তারা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচার শুরু করেছে ইউপি সদস্য মোল্লা মারুফসহ ইউপি সদস্য মো. মনির হোসেন, মো. উজ্জ্বল মৃধা, মো. মহসিন, মো. তসলিম, সিরাজুল ইসলাম ও মোসা. আতিয়া আক্তার।
তিনি আরও বলেন, ইউপি সদস্য মারুফ আমার সীল ও স্বাক্ষর জাল করে প্রতারণা করে আসছে। এমন সংবাদ পেয়ে আমি আইন পদক্ষেপ নিতে যাবো, তখনই তিনি কতিপয় কুচক্রী মহলের সঙ্গে জোট বেধে আমরা বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বানোয়াট কুৎসা রটাচ্ছে। এছাড়াও অভিযুক্ত ইউপি সদস্যরা শোক দিবসের কর্মসূচি পালন করতে চায়নি।
তবে অভিযোগের বিষয়ে অভিযুক্ত ইউপি সদস্যরা বলেন, চেয়ারম্যান ইউনিয়ন পরিষদে উপস্থিত না থাকায় আমরা অফিসিয়াল কাজ চালিয়েছি। স্বাক্ষর জালিয়াতির বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি তারা।
এবিষয়ে মির্জাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাইয়েমা হাসান বলেন, আমরা অভিযোগ পেয়েছি। আইন অনুযায়ী তদন্ত করা হবে।