Fri. Apr 23rd, 2021

14মঙ্গলবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০১৫
২২ বছর শ্রীলঙ্কার মাটিতে টেস্ট সিরিজ জেতে না ভারত। সেই আক্ষেপ মেটানোর দোরগোড়ায় এখন বিরাট কোহলির দল। গতকাল চতুর্থ দিন দ্বিতীয় ইনিংসে তারা ২৭৪ রানে অলআউট হওয়ায় শ্রীলঙ্কার লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩৮৬ রান। কলম্বোর সিংহলিজ স্পোর্টস গ্রাউন্ডের সিমিং পিচে রীতিমতো পাহাড় এটা। চতুর্থ দিনের খেলা শেষে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজের দল ৬৭ রান তুলতে হারিয়েছে ৩ উইকেট। এসএসসিতে সর্বো”চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড ৩২৬। ১৯৯৮ সালে শ্রীলঙ্কা সেটা করেছিল দুর্বল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। ইশান্ত-যাদবরা যেভাবে আগুন ঝরাচ্ছেন তাতে ১-১ সমতায় থাকা সিরিজটা বাঁচাতে আজ অলৌকিক কিছুই করতে হবে তাদের।

বার বার বাঁক বদলের এই টেস্টে ব্যাট-বলের পাশাপাশি জমে উঠেছে কথার লড়াইও। কথা চালাচালি হচ্ছিল তৃতীয় দিন থেকে। গতকাল মাত্রা ছাড়াল সেটা। ভারতীয় ইনিংসের শেষ ওভারে পর পর দুটি বাউন্সার করেছিলেন ধাম্মিকা প্রসাদ। এক ওভারে দুটি বাউন্সারের কোটা পূরণের পর তৃতীয় বলটাও ইশান্ত শর্মার দিকে বাউন্সার ছোড়েন এ পেসার। বলটা পয়েন্টে ঠেলে সিঙ্গেল নেওয়ার সময় প্রসাদের দিকে হেলমেটে ইঙ্গিত করে ইশান্ত বোঝাচ্ছিলেন, ‘মাথায় মার আমার।’ প্রসাদ এর জবাব দিলে এগিয়ে আসেন ইশান্তও। পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় ইশান্তের সঙ্গে দীনেশ চান্ডিমালের শরীর ছুঁয়ে গেলে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয় আরো। আম্পায়াররা অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজকে ডাকেন তাঁর খেলোয়াড়দের শান্ত করার জন্য। সেই ওভারে ইচ্ছা করেই হয়তো আরো একটা বাউন্সার ছোড়েন প্রসাদ! তবে ওভারের শেষ বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ বানিয়ে ফেরান ইনিংসে সর্বো”চ ৫৮ রান করা রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে। এরপর প্যাভিলিয়নে ফেরার সময় ইশান্তের কাছে গিয়ে আবারও কিছু বলেন প্রসাদ। ইশান্ত এর জবাব দেন দ্বিতীয় ইনিংসে প্রথম ওভারেই উপুল থারাঙ্গা ও দীনেশ চান্ডিমালকে ফিরিয়ে মাথা ঝাঁকিয়ে বোঝাতে থাকেন ‘শুধু বাউন্সারেই কাজ হয় না।’

এমন উত্তেজনার ম্যাচে বারুদ ছড়াতে আজ বিশেষ কিছুই করতে হবে লঙ্কান ব্যাটসম্যানদের। ৬৭ রানে ৩ উইকেট হারানো দলের ভরসা হয়ে ক্রিজে আছেন অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ (২২) ও কৌশল সিলভা (২৪)। আজ ৯৮ ওভারে জয়ের জন্য তাদের দরকার ৩১৯ রান। আর ভারতের ৭ উইকেট। এর আগে তৃতীয় দিনের ৩ উইকেটে ২১ রান নিয়ে খেলতে নেমে ভারত চা বিরতির পর অলআউট হয় ২৭৪ রানে। রোহিত শর্মা আর স্টুয়ার্ট বিনির পর লোয়ার অর্ডারে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের, অমিত মিশ্রর, নামান ওঝার কল্যাণে স্কোরটা পৌঁছে ২৭৪-এ। ধাম্মিকা প্রসাদ ও নুয়ান প্রদীপ নেন ৪টি করে উইকেট।

ভারত : ৩১২ ও ২৭৪ (অশ্বিন ৫৮, রোহিত ৫০, বিনি ৪৯, মিশ্র ৩৯, কোহলি ২১; প্রদীপ ৪/৬২, প্রসাদ ৪/৬৯)।

শ্রীলঙ্কা : ২০১ ও ৬৭/৩ (সিলভা ২৪*, ম্যাথুজ ২২*, চান্ডিমাল ১৮; ইশান্ত ২/১৪, যাদব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *