Fri. Apr 23rd, 2021

15 মঙ্গলবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০১৫
যে কাজটা তিনি সবচেয়ে সহজে করতে পারেন, সেটাই যেন মনে হচ্ছে সবচেয়ে কঠিন! মেঘ না চাইতে বানের মতো হাজির হয় গোল। সেই ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো গোল পাচ্ছেন না! শুধু স্প্যানিশ লিগের দুই ম্যাচে নয়, প্রাক-মৌসুমেও ছয় ম্যাচ মিলিয়ে গোল করেছেন মাত্র একটি। রোনালদো খেলেছেন সর্বশেষ আট ম্যাচে তাঁর নামের পাশে একটি মাত্র গোল—ভাবা যায়!

স্পেনের, আরও স্পষ্ট করে বললে মাদ্রিদের সংবাদমাধ্যম প্রশ্নটা তাই জোরেশোরে তুলেছে—রোনালদোকে ঠিকমতো ব্যবহার করতে পারছেন তো কোচ রাফায়েল বেনিতেজ? বেনিতেজকে নিয়ে রিয়াল সমর্থকদের অস্বস্তি আরও একটা কারণে। প্রাক মৌসুমে আট ম্যাচে মাত্র ১০ গোল করেছে রিয়াল। এর মধ্যে চার ম্যাচে তো গোলই পায়নি। এর পর লিগের প্রথম ম্যাচে রেলিগেশন খাঁড়া কাটিয়ে ফেরা একটা দলের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র!

রিয়ালের সিংহভাগ গোলের জোগানদাতা রোনালদোই। রিয়ালের হয়ে ৩০২ ম্যাচ খেলে গোল করেছেন ৩১৩টি। ম্যাচের চেয়ে গোলের সংখ্যাই বেশি। সেই রোনালদো না-পাওয়া তো রিয়ালেরও গোলশূন্যতায় ভোগা।

অনেকেই প্রশ্ন তুলছেন বেনিতেজের কৌশল নিয়েই। আনচেলত্তি-জমানায় রিয়াল আগে খেলত ৪-৩-৩ ছকে। আক্রমণে বিবিসি একসঙ্গে যেত। কিন্তু বেনিতেজ খেলাচ্ছেন ৪-২-৩-১ ছকে। তাতে সবার সামনে থাকছেন করিম বেনজেমা। পেছনে তিনজন—রোনালদো, গ্যারেথ বেল ও হামেস রদ্রিগেজ। রোনালদোর গোল না পাওয়ার কারণ হিসেবে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম দায়ী করছে বেনিতেজের কৌশল ও অনুশীলনের পদ্ধতিকে। পর্তুগিজ উইঙ্গার নাকি বেনিতেজের কৌশলে স্বচ্ছন্দ বোধ করছেন না। বেনিতেজ যেভাবে খেলাচ্ছেন, তাতে তাঁকে নাকি ঠিকভাবে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে না, এমনটাই ভাবছেন রোনালদো।

প্রাক মৌসুমেই ব্রিটেনের প্রভাবশালী দৈনিক টেলিগ্রাফ একটি খবর দিয়েছিল। যে খবরে বলা হয়েছিল, বেনিতেজের নতুন রিয়াল-এ আক্রমণ সাজানো হবে বেলকে কেন্দ্র করে। ৩১ বছর বয়সী রোনালদো নয়, ২৫ বছর বয়সী বেলকেই ভবিষ্যৎ​ মনে করছে রিয়াল। বেলকে রেকর্ড দামে কেনার সার্থকতা এখনো প্রমাণ করতে পারেননি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ। রিয়াল সভাপতির কাছে প্রস্তাবটা পাড়ানোর পর বেনিতেজকে সবুজ সংকেতই দেওয়া হয়েছে।

টেলিগ্রাফের সেই খবরই যেন সত্যি হয়ে দেখা দিচ্ছে বেনিতেজের ছকে। বেল তাঁর পছন্দের লেফট উইংয়ে যেতে পারেননি অবশ্য। রোনালদো এখনো সেই জায়গা ধরে রেখেছেন। কিন্তু বেলকে ডান উইংয়ের বদলে মাঝখানে, সেন্টার ফরোয়ার্ডের ঠিক পেছনে খেলাচ্ছেন বেনিতেজ। এতে বেল আগের চেয়ে অনেক স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন।

আক্রমণভাগে বেল আগের তুলনায় অনেক বেশি ভূমিকা পালনের সুযোগ পাচ্ছেন। রিয়াল ​বেতিসের বিপক্ষে গত ম্যাচে বেল জোড়া গোলও করেছেন। কিন্তু দক্ষ কোচ কখনোই একজনকে আবিষ্কার করতে গিয়ে আরেকজনকে হারিয়ে ফেলতে দেন না। বেলের পায়ে গোল এনে দেওয়ার দাওয়াই দিতে গিয়ে রোনালদোকে গোলশূন্য করাটা যে ঝুঁকিপূর্ণ।

বেনিতেজ অবশ্য সংবাদমাধ্যমের এসব কথায় গুরুত্ব দিচ্ছেন না। তাঁর বক্তব্য, রোনালদোর গুরুত্ব মোটেও কমানো হয়নি। বরং আগের মতোই আছে। বেতিসের বিপক্ষে জেতার পর বলেছেন, ‘এ ম্যাচেও গোলে সবচেয়ে বেশি শট নিয়েছে রোনালদোই, যেমনটা নিয়েছিল গিজনের বিপক্ষে। এটাই আসল কথা। ওর সামর্থ্য নিয়ে কেউ সংশয় দেখায়নি। দল অনেক বেশি সুযোগ তৈরি করলেই না সে অনেক বেশি গোল করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *